RSS

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, দেশের মানুষকে আগে মালয়েশিয়ায় যেতে বিপুল পরিমাণ অর্থ রিক্রুটিং এজেন্সির হাতে তুলে দিতে হতো।

02 Aug
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, দেশের মানুষকে আগে মালয়েশিয়ায় যেতে বিপুল পরিমাণ অর্থ রিক্রুটিং এজেন্সির হাতে তুলে দিতে হতো। বিএনপির শাসনামলে এর একটি অংশ হাওয়া ভবনে যেত।
এখন মানুষ মাত্র কয়েক হাজার টাকা খরচ করে মালয়েশিয়ায় যেতে পারেন। আইসিটির সুবাদে ওই দেশে যাওয়ার প্রক্রিয়া যথেষ্ট সহজ হয়েছে। এ ব্যাপারে এখন অনিয়ম করার কোনো সুযোগ নাই।
আজ বৃহস্পতিবার সকালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে ডমেস্টিক নেটওয়ার্ক কো-অর্ডিনেশন কমিটির (ডিএনসিসি) ত্রয়োদশ বৈঠকে সূচনা বক্তব্যে জয় এ কথা বলেন। কমিটির চেয়ারম্যান ও প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব শেখ মোহাম্মদ ওয়াহিদ-উজ-জামান বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। খবর বাসসের।
সজীব ওয়াজেদ জয় বলেন, সরকার সাধারণ মানুষের দোরগোড়ায় তথ্যপ্রযুক্তি সুবিধা পৌঁছে দেওয়ার মাধ্যমে ব্যাপক হারে দুর্নীতি হ্রাসে সক্ষম হয়েছে।সজীব ওয়াজেদ বলেন, জনগণের জীবনযাত্রার মানোন্নয়নের জন্য তিনি ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনের স্বপ্ন দেখেন। তিনি বলেন, এই স্বপ্ন বাস্তবায়নে দুটি বিষয় জরুরি। এর একটি হচ্ছে বিদ্যুত্ এবং দ্বিতীয়টি হচ্ছে সংযোগ। তিনি বলেন, সরকার ইতিমধ্যে বিদ্যুত্ সমস্যা সমাধান করতে সক্ষম হয়েছে এবং গত সাড়ে চার বছরে সংযোগের ক্ষেত্রে তাত্পর্যপূর্ণ অগ্রগতি হয়েছে।

জয় বলেন, ডমেস্টিক নেটওয়ার্ক কো-অর্ডিনেশন কমিটি সংযোগ ক্ষেত্রের সীমা বৃদ্ধির জন্য কাজ করে যাচ্ছে এবং এ ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হয়েছে, কেননা জনগণ এখন ইউনিয়ন তথ্যসেবাকেন্দ্রের মাধ্যমে সরকারের বিভিন্ন সেবা লাভ করছে।
সংশ্লিষ্ট সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়ে জয় বলেন, ‘সংযোগের ক্ষেত্রে বহু সাফল্য রয়েছে, যা এখন চূড়ান্ত পর্যায়ে এবং আমি আশা করি, আপনারা আপনাদের প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখবেন।’ তিনি অবশ্য বলেন, ‘এখনো অনেক কাজ বাকি এবং আওয়ামী লীগ সরকার পুনর্নির্বাচিত হলে এসব কাজ অব্যাহত থাকবে।’
ডিএনসিসির ত্রয়োদশ বৈঠকে ফাইবার অপটিকস সম্প্রসারণের অগ্রগতি পর্যালোচনা করা হয়। বৈঠকে জানানো হয়, বিটিসিএল ইতিমধ্যে ১০৮টি ইউনিয়নে ফাইবার অপটিকস সংযোগ দিয়েছে এবং এক হাজার ইউনিয়নে ফাইবার অপটিকস সংযোগ প্রদানের প্রক্রিয়া এগিয়ে চলেছে।
এতে আরও জানানো হয়, প্রত্যন্ত এলাকায় আরও এক হাজারটি সংযোগ প্রদানের লক্ষ্যে একটি প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। সংশ্লি¬ষ্ট সচিবগণ, বিটিআরসির চেয়ারম্যান এবং বিভিন্ন সরকারি সংস্থার প্রতিনিধিরা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।
বর্তমান সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনের অন্যতম লক্ষ্য হচ্ছে পল্লি এলাকাসহ সারা দেশে ব্রডব্যান্ড নেটওয়ার্ক সুবিধা পৌঁছে দেওয়া। এ লক্ষ্যে ২০১০ সালে সরকারের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সংস্থার সমন্বয়ে ডমেস্টিক নেটওয়ার্ক কো-অর্ডিনেশন কমিটি (ডিএনসিসি) গঠন করা হয়।

Photo: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, দেশের মানুষকে আগে মালয়েশিয়ায় যেতে বিপুল পরিমাণ অর্থ রিক্রুটিং এজেন্সির হাতে তুলে দিতে হতো। বিএনপির শাসনামলে এর একটি অংশ হাওয়া ভবনে যেত।<br />
এখন মানুষ মাত্র কয়েক হাজার টাকা খরচ করে মালয়েশিয়ায় যেতে পারেন। আইসিটির সুবাদে ওই দেশে যাওয়ার প্রক্রিয়া যথেষ্ট সহজ হয়েছে। এ ব্যাপারে এখন অনিয়ম করার কোনো সুযোগ নাই।<br />
আজ বৃহস্পতিবার সকালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে ডমেস্টিক নেটওয়ার্ক কো-অর্ডিনেশন কমিটির (ডিএনসিসি) ত্রয়োদশ বৈঠকে সূচনা বক্তব্যে জয় এ কথা বলেন। কমিটির চেয়ারম্যান ও প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব শেখ মোহাম্মদ ওয়াহিদ-উজ-জামান বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। খবর বাসসের।<br />
সজীব ওয়াজেদ জয় বলেন, সরকার সাধারণ মানুষের দোরগোড়ায় তথ্যপ্রযুক্তি সুবিধা পৌঁছে দেওয়ার মাধ্যমে ব্যাপক হারে দুর্নীতি হ্রাসে সক্ষম হয়েছে।</p>
<p>সজীব ওয়াজেদ বলেন, জনগণের জীবনযাত্রার মানোন্নয়নের জন্য তিনি ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনের স্বপ্ন দেখেন। তিনি বলেন, এই স্বপ্ন বাস্তবায়নে দুটি বিষয় জরুরি। এর একটি হচ্ছে বিদ্যুত্ এবং দ্বিতীয়টি হচ্ছে সংযোগ। তিনি বলেন, সরকার ইতিমধ্যে বিদ্যুত্ সমস্যা সমাধান করতে সক্ষম হয়েছে এবং গত সাড়ে চার বছরে সংযোগের ক্ষেত্রে তাত্পর্যপূর্ণ অগ্রগতি হয়েছে।</p>
<p>জয় বলেন, ডমেস্টিক নেটওয়ার্ক কো-অর্ডিনেশন কমিটি সংযোগ ক্ষেত্রের সীমা বৃদ্ধির জন্য কাজ করে যাচ্ছে এবং এ ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হয়েছে, কেননা জনগণ এখন ইউনিয়ন তথ্যসেবাকেন্দ্রের মাধ্যমে সরকারের বিভিন্ন সেবা লাভ করছে।<br />
সংশ্লিষ্ট সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়ে জয় বলেন, ‘সংযোগের ক্ষেত্রে বহু সাফল্য রয়েছে, যা এখন চূড়ান্ত পর্যায়ে এবং আমি আশা করি, আপনারা আপনাদের প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখবেন।’ তিনি অবশ্য বলেন, ‘এখনো অনেক কাজ বাকি এবং আওয়ামী লীগ সরকার পুনর্নির্বাচিত হলে এসব কাজ অব্যাহত থাকবে।’<br />
ডিএনসিসির ত্রয়োদশ বৈঠকে ফাইবার অপটিকস সম্প্রসারণের অগ্রগতি পর্যালোচনা করা হয়। বৈঠকে জানানো হয়, বিটিসিএল ইতিমধ্যে ১০৮টি ইউনিয়নে ফাইবার অপটিকস সংযোগ দিয়েছে এবং এক হাজার ইউনিয়নে ফাইবার অপটিকস সংযোগ প্রদানের প্রক্রিয়া এগিয়ে চলেছে।<br />
এতে আরও জানানো হয়, প্রত্যন্ত এলাকায় আরও এক হাজারটি সংযোগ প্রদানের লক্ষ্যে একটি প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। সংশ্লি¬ষ্ট সচিবগণ, বিটিআরসির চেয়ারম্যান এবং বিভিন্ন সরকারি সংস্থার প্রতিনিধিরা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।<br />
বর্তমান সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনের অন্যতম লক্ষ্য হচ্ছে পল্লি এলাকাসহ সারা দেশে ব্রডব্যান্ড নেটওয়ার্ক সুবিধা পৌঁছে দেওয়া। এ লক্ষ্যে ২০১০ সালে সরকারের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সংস্থার সমন্বয়ে ডমেস্টিক নেটওয়ার্ক কো-অর্ডিনেশন কমিটি (ডিএনসিসি) গঠন করা হয়।

মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা আমরা গড়বোই গড়বো

আমরা যারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বাংলাদেশ দেখতে চাই এখন দায় তাঁদের। সরকারের একার পক্ষে সে দায় বহন করা কঠিন। বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা নিজের জীবনকে বিপন্ন করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বাংলাদেশ গড়ার পথের বাধাগুলো দৃঢ়তার সাথে একের পর এক অপসারণ করে চলেছেন। বিলম্বে হলেও আওয়ামীলীগ সরকার এখন কঠিন সত্যকে আঁকড়ে ধরে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী সকল অপশক্তি নির্মূলে বদ্ধপরিকর। এখন এই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা অনেকটাই যুদ্ধের মতো। এখন জরুরি, মান অভিমান ভুলে আমাদেরকে, হাঁ আমাদেরকেই একাত্তরের শক্তিতে বলীয়ান হয়ে শেখ হাসিনার সরকারের পাশে দাঁড়াতে হবে। এর কোন ব্যত্যয় হলে হুমকির মুখে পড়বে মুক্তিযুদ্ধের অর্জন আমাদের প্রিয় মা বাংলাদেশ। মায়ের বিপন্ন দশা আমরা নিশ্চয়ই কেউ চাইবো না।
মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী অপশক্তি দেশ জুড়ে নাশকতা চালাচ্ছে। ১২ ও ১৩ আগস্ট হরতাল ডেকে আরও বড় নাশকতার ষড়যন্ত্র করছে।
আর আমরা নির্লিপ্ত থাকতে পারি না। শেখ হাসিনা ও তার সরকারের পাশে থেকে সকল নাশকতার দাঁতভাঙা জবাব দেবো আমরা। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী সকল অপশক্তি চিরতরে নির্মূল করে আমরা মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা আমরা গড়বোই গড়বো।
 

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

 
%d bloggers like this: